এই মিউচুয়াল ফান্ডে শুধুমাত্র ১০ হাজার টাকার মাসিক SIP- তে, আপনি পেতে পারেন ৪.৮৭ কোটি টাকা!

Rate this post

SBI ব্যাংক, ১৯৯৯ সালের ৫ জুলাই প্রথম কন্ট্রা ফান্ড চালু করেছিল। বর্তমানে ২৪ বছর পূর্তি হল SBI কন্ট্রা ফান্ড এর। আর এই ভাবেই SBI এমপি হয়ে উঠেছে দেশের প্রথম এসিড ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি। এই স্কিম ফান্ড শুরুর থেকে এখনো পর্যন্ত রিটার্ন দিয়েছে ১৮.৯৭ শতাংশ। চলতি বছরের গত ৩০ জুন পর্যন্ত ব্যাংকের এ-ইউ-এম এসে দাঁড়িয়েছে ১১,৩৯৮ কোটি টাকায়।

বর্তমানে কন্ট্রা ফান্ড এর পোর্টফোলিও রয়েছে ৮.৭৮ লক্ষ্য। অর্থাৎ আপনি সোজাসুজি বুঝে নিতে পারেন ফান্ড শুরুর প্রথমে যদি কেউ ১ লক্ষ্য টাকা বিনিয়োগ করতেন তাহলে আজ সেই অংকটা বেড়ে দাঁড়াতো ৬৫.২০ লক্ষ টাকায়।

আরো পড়ুন- পোস্ট অফিস এর এই স্কিমে স্বল্পকালের জন্য বিনিয়োগ করলেই আপনি লাভ উঠাতে পারবেন ২ লক্ষ্য টাকার উপর।

কন্ট্রা মিউচুয়াল ফান্ড কি?

এই ফান্ডে ফান্ড ম্যানেজার সাধারণত বাজার প্রবণতার বিরুদ্ধে বাজি লাগিয়ে থাকেন। সব সময় মৌলিকভাবে শক্তিশালী কিন্তু সস্তা স্টক বাছাই করা হয় এই কন্ট্রা ফান্ড এর মাধ্যমে। সর্বদা কম পারফর্মিং স্টক কিনে থাকে এই কন্ট্রা ফান্ড।

আপনার জেনে রাখা ভালো যে, এই স্কিমটি বিগত ৫ বছরে ১৮.৭১ শতাংশ, বিগত ৩ বছরে ৪০.৯১ শতাংশ এবং ১ বছরে ৩২.৬৩ শতাংশ রিটার্ন দিয়েছে। একই সময় উক্ত স্কিমের বেঞ্চমার্ক S&P BSE 500 TRI যথাক্রমে ১৩.৮৬ শতাংশ, ২৬.৪০ শতাংশ এবং ২৩.৯৮ শতাংশ রিটার্ন দিয়েছে।

আরো পড়ুন- প্যান কার্ড নিষ্ক্রিয় হলে যে ১৫ কাজ আর সম্ভব নয়!

কত টাকা আয় হয়ে থাকে?

গত ২০০৮ সালের আর্থিক সংকট কাটিয়ে উঠে ২০০৯ সালে পুনরায় ঘুরে দাঁড়িয়েছিল বাজার। উক্ত সময় এই ফান্ড ৯০ শতাংশ রিটার্ন দিয়েছিল। তারপর আবার ২০০৯-২০১১ সাল পর্যন্ত এই ফান্ড থেকে উচ্চ রিটার্ন পাওয়া সম্ভাবপর হয়ে ওঠেনি। অর্থাৎ SBI কন্ট্রা ফান্ড গত ২৪ বছরে বেশ উচ্চ রিটার্ন দিয়েছে, কিন্তু সব সময়ই যে উচ্চ রিটার্ন দিয়ে থাকবে এমন কোন কথা নেই।

এরপর ২০১২ সাল থেকে এই ফান্ড কম কম ব্যবধানে আউট পারফরম্যেন্স দেখিয়েছে। কিন্তু বিগত তিন বছর অর্থাৎ ২০২০,২০২১ এবং ৩০২২-তে এই ফান্ড একপ্রকার উল্লেখযোগ্য ব্যবধান বজায় রেখে বেঞ্চমার্ক ছাড়িয়ে গিয়েছে। যেমন ২০২০ ও ২০২১ সালের বেঞ্চমার্ক ছিল যথাক্রমে ১২ শতাংশ ও ১৮ শতাংশ এবং ২০২২ সালে তা হয় মোটে ৪ চার শতাংশ।

আরো পড়ুন- যে সমস্ত ব্যাংকের সেভিংস একাউন্ট থাকলেই পাবেন ৮ শতাংশ পর্যন্ত সুদ!

অর্থাৎ ফান্ড শুরুর থেকেই কেউ যদি শুধুমাত্র ১০ হাজার টাকা মাসিক SIP মাধ্যমে বিনিয়োগ করতেন এখনো পর্যন্ত ওই ব্যক্তির ২৮.৮ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ মাধ্যমে জমা পড়তো। ১৯৯৯ সাল এর ৫ জুলাই থেকে ৩০ জুন ২০২৩, অর্থাৎ বিগত ২৪ বছরে SIP মাধ্যমে ১৯.৫৭ শতাংশ রিটার্ন দিয়ে এই অ্যামাউন্ট দাঁড়াতো ৪.৮৭ কোটি টাকায়।

একই পদ্ধতিতে এই স্কিমের মাধ্যমে ১৪ বছরে ১৫.১৩ শতাংশ, ১০ বছরে ১৭.৫৫ শতাংশ, ৫ বছরে ২৬.৫১ শতাংশ, ৩ বছরে ২৮.৭৩ শতাংশ এবং ১ বছরে ২৮.২৫ শতাংশ রিটার্ন সম্ভব হয়েছে।

এই প্রকার দৈনিক বিভিন্ন ধরনের উচ্চ রিটার্ন সমৃদ্ধ স্কিম সম্পর্কে আপডেটেড থাকতে জুড়ে থাকবেন- ajkersonardam.com এর সাথে।

Leave a Comment