ATM ব্যবহার করলে Shoulder Surfing পদ্ধতি থেকে সাবধানে থাকুন, না হলে মুহূর্তে একাউন্ট খালি হতে পারে!

Rate this post

পদ্ধতি সোজা হোক বা বাঁকা, টাকা যেখানে প্রতারকদের ফাঁদ সেখানেই। Shoulder Surfing পদ্ধতি হলো এমন এক অভিনব পন্থা যে মাধ্যমে গ্রাহকের টাকা পয়সা সম্পর্কিত ব্যক্তিগত তথ্য চুরি করে নেয় প্রতারকেরা। সাধারণত অনলাইন মাধ্যমে এই ফাঁদ পাতা হয়ে থাকে। আর এই পদ্ধতি অবলম্বন করে একবার সফল হলেই মুহূর্ত গ্রাহকের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খালি হতে পারে।

এখন হয়তো আপনার টনক নড়তে পারে এটিএম থেকে টাকা তোলার সঠিক পদ্ধতির ব্যাপারে। সোল্ডার সার্ফিং পদ্ধতি বিশেষত এটিএম মেশিন এর আশেপাশেই পাতা হয়ে থাকে। আপনার কাছে পুরো ব্যাপারটি জটিল এবং ভীতিকর হলেও প্রতারকদের কাছে এই পদ্ধতি এটিএম প্রতারণার তালিকায় অন্যতম। এখন হয়তো এই সম্পূর্ণ বিষয়টা আপনার কাছে অতটাও সুরক্ষিত নাও মনে হতে পারে। তাই আপনার এখন কাজ হল এই পদ্ধতি সম্পর্কে সম্পূর্ণরূপে অবগত হয়ে নেওয়া।

আরো পড়ুন- যে ৫ ধরনের আয়ের উপর কোন রকম ট্যাক্স প্রযোজ্য হয় না।

আপনি যদি এটিএম মেশিনের পাশে দাঁড়িয়ে ফোন দাড়াই হোক বা মেশিনের বোতাম টিপেই হোক লেনদেন করেছেন। এমন সময় প্রতারকরা যেকোনো জায়গায় লুকিয়ে থাকতে পারে তা কোন মানুষ হতে পারে অথবা কোন লুকানো ক্যামেরা। এক্ষেত্রে প্রতারক যদি কোন মানুষ হয়ে থাকে তাহলে আপনি আপনার গোপনীয় নাম্বার এক্সেস করার সময় পিছন অথবা বাস থেকে আপনার কাঁধের দিকে তাকানোর ভান করে থাকে ব্যাস তারপরেই প্রতারকদের তীক্ষ্ণ দৃষ্টি চুরি করে নেয় আপনার গোপন তথ্যসমূহ।

আরো পড়ুন- ফিক্সড ডিপোজিট করেছেন অথচ এই কাজটি করতে ভুলেছেন? খোয়া যেতে পারে মোটা টাকা।

প্রতারকরা আসলে আপনার কাঁধের উপর দিয়ে আপনার ফোনের স্কিন অথবা এটিএম নাম্বার সিস্টেম এর উপর দৃষ্টিপাত করে থাকে। তারা এই পদ্ধতিতে আপনার গোপনীয় পাসওয়ার্ড অথবা এটিএম পিন নাম্বারের উপর নজর রাখার চেষ্টা করে। সাধারণত জনবহুল এলাকাতেই এই জালিয়াতির কার্য সম্পন্ন করতে চায় তারা। এমনকি আপনি যখন কোন পাবলিক ট্রান্সপোর্ট মাধ্যমে যাত্রা করেন ওই সময় আপনার ক্রেডিট কার্ড এর নম্বর অ্যাকসেস করা উচিত নয়। কারণ এই ক্ষেত্রে নম্বর চুরি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থেকে। আপনার জেনে রাখা ভালো যে সম্প্রতিকালধরে প্রতারকরা এক ধরনের বিশেষ বাইনোকুলার ব্যবহার করছে পিন নম্বর অথবা পাসওয়ার্ড হাতানোর জন্য।

প্রতারণা এড়িয়ে চলার উপায়

আপনি এটিএম এর সামনে দাঁড়িয়ে ফোন অথবা এটিএম পিন অ্যাকসেস করার সময় অবশ্যই নজর রাখবেন আপনার আশেপাশে কেউ রয়েছে কিনা। অর্থাৎ আপনার আশপাশ থেকে কোন সন্দেহভাজন ব্যক্তি আপনার দিকে লক্ষ্য অথবা নজর রাখছে কিনা। এছাড়াও এটিএম মাধ্যমে কোন সমস্যায় পড়লে অপরিচিত ব্যক্তির থেকে সাহায্য নেওয়া কখনোই উচিত নয়। কোনরকম লেনদেন করার আগে দেখে নিতে হবে সন্দেহভাজন এমন কোন ক্যামেরা কোথাও লাগানো রয়েছে কিনা। আর তাই এটিএম মাধ্যমে এটিএম পিন ব্যবহার করার সময় সর্বদা কিপ্যাড হাত দিয়ে আড়াল করে রাখবেন। কারণ সন্দেহভাজন ক্যামেরা সর্বদা এটিএম স্কিনের আশেপাশেই রাখা থাকে প্রতারক দ্বারা।

আপনি এটিএম ব্যবহার করার সময় আপনার ট্রানজাকশন যতক্ষণ না পর্যন্ত সাকসেসফুল হচ্ছে ততক্ষণ পর্যন্ত এটিএম মেশিনের সামনেই থাকুন। আপনার ব্যাংক স্টেটমেন্ট প্রায় প্রত্যেকদিন একবার অন্তত চেক করুন। এক্ষেত্রে কোন অসঙ্গতি চোখে পড়লেই চটজলদি নিকটবর্তী ব্যাংকের সঙ্গে যোগাযোগ করুন।

Leave a Comment